1. multicare.net@gmail.com : আমাদের পিরোজপুর ২৪ :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পিরোজপুরে বিনা অভিবাসন ব্যয়ে চাকরি সুযোগ পাওয়া শতাধিক নারীকর্মীর অবহিতকরন কর্মশালা অনুষ্ঠিত বরিশাল বিভাগের ১৪ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহন  তারাকান্দায় ইয়াবাসহ মাদক কারবারি আটক গজারিয়া উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের দায়িত্ব গ্রহণ পবিপ্রবিয়ানদের ঈদ ভাবনা গজারিয়ায় ১২কি:মি অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ১২ টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন মামলা প্রক্রিয়াধীন বিশ্বকাপ উন্মাদনায় মেতেছে পবিপ্রবি শিক্ষার্থীরাও ফুলপুর ভূমি অফিস দুর্নীতি ও দালাল মুক্ত রাখার ঘোষণা ইউএনওর তারাকান্দায় বিভিন্ন মামলার ৬ আসামি গ্রেফতার বায়জিদ মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

মুন্সীগঞ্জে ৩ ব্যবসায়ি পার্টনার মিলে খুন করে সৌদি প্রবাসীকে, গ্রেফতার-৬

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ, ২০২৪
  • ৫৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মুন্সীগঞ্জে সিরাজদিখানে ৩ ‌ব্যবসায়ী পার্টনার মিলে খুন করে সৌদি প্রবাসীকে।এ ঘটনায় ৬ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করলে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসে।গ্রেফতারকৃতরা হলো-মাহাবুব হোসেন (২৭) পিতা আব্দুল রব, আরিফ (৪২)পিতা মৃত ইলিয়াস মিয়া, হাবিবুল্লাহ (৪৫) পিতা মৃত শাহাবুদ্দিন, মোজাম্মেল হক(৬০) পিতা মৃত আবদুল আজিজ, মনির (৪০) পিতা মৃত মন্নাফ, আক্কাস আলী (৬৫) পিতা মৃত চান মিয়া।সিরাজদিখান থানার ওসি মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সৌদি আরব থেকে দেশে এসে জমি বেচাকেনার কাজ করতেন নিহত মুজিবুর রহমান (৪৫)।সে উপজেলার চর পানিয়া গ্রামের মৃত সহর আলীর ছেলে।গত ১০মার্চ সকালে সরকার বাড়ীর বিলে হাবিব সরকারের ঘাসের ক্ষেতে মুজিবুরের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা।পরবর্তীতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়।হত্যার ৭২ ঘন্টার মধ্যে ক্লুলেস এই মামলার রহস্য উন্মোচন ও ৬ জনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রথমে মাহাবুব হোসেন,আরিফ ও হাবিবুল্লাহকে গ্রেফতার করে পুলিশ।এ ঘটনায় মুল আসামীকে মানিকগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়।তারা হত্যার কথা স্বীকার করে ঘটনার সঙ্গে নিজেদের জড়িয়ে মুন্সীগঞ্জ আদালতে ১৬৪ ধারায় বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।গ্রেফতারকৃতদের উদ্ধৃতি দিয়ে ওসি জানান,প্রায় একমাস আগে রাত সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার আনারকলি অফিসে নিহত মজিবুর রহমানের ব্যবসায়ীক পার্টনার।হাবুল্লাহ, আরেফিন ও পিয়ার মিলে হত্যার পরিকল্পনা করে।এ সময় মাহবুব হোসেন বাইরে থেকে তাদের পরিকল্পনা শুনে ফেলে।মাহবুবকে তারা দেখে ফেলায় তারা তাকে প্রস্তাব দেয় পঞ্চাশ হাজার টাকা দিবে তাদের সাথে একটি কাজ করতে হবে।পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গত‌ ৯ মার্চ রাতে হাবুল্লাহ মাহবুবকে একটি ব্যাগে ২টি চাইনিজ কুড়াল দিয়ে নবধারা হাউজিং এ গিয়ে অপেক্ষা করতে বলে।মাহাবুব তাদের কথা মত সন্ধ্যা সাতটার থেকে অপেক্ষা করতে থাকে।পরবর্তীতে হাবুল্লাহ,আরেফিন ও পিয়ার নিহত মুজিবকে সাথে নিয়ে রাত ১০টার দিকে সিসি ক্যামেরা এড়িয়ে সরকার সিটির ভেতর দিয়ে একটি জমিতে নিয়ে যায়।সেখানে আবুল্লাহ, আরেফিন ও পিয়ার মিলে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে।এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে। গ্রেফতারকৃতরা স্বীকারোক্তিতে এটি জানিয়েছে বলেও জানান ওসি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓