1. multicare.net@gmail.com : আমাদের পিরোজপুর ২৪ :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১১:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সোমবার দুর্গত এলাকার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ প্রবল ঘূর্ণিঝড় রেমাল বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে শুরু করেছে মুন্সীগঞ্জের কৃতি সন্তান নৌ পুলিশের ডিআইজি ইরান পেলেন উন্নয়নে বাংলা অ্যাওয়ার্ড মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে এক রাতেই ৯টি কবরের কঙ্কাল চুরির অভিযোগ পানি সমস্যা সমাধানে বিত্তহীনদের পাশে সমাজসেবী তাপস পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চল প্লাবিত, ৫৬১টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রোববার রাতে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় রেমাল ঘূর্ণিঝড় রেমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ফুলপুরে ভিজিএফ কর্মসূচি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন প্রাইম ব্যাংক জাতীয় স্কুল ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে কাউখালীর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে মিরপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৫৯ বার পড়া হয়েছে

ফাতেমা আক্তার মাহমুদা ইভা ঢাকা :

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে মিরপুর বৃহস্পতিবার (১৪ ইং ডিসেম্বর) সকালে মিরপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি মোঃ জাকির হোসেন মোল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক এম মনির হোসেনের নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন করে এ সময় শহিদ মিনারে শহীদদের উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছেন মিরপুর রিপোর্টার্স ক্লাব নেতৃবৃন্দ রিপোর্টার্স সময় উপস্থিত ছিলেন মিরপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সহ-সভাপতি কাজী শরিফ নেওয়াজ (লালন), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদ মোঃ ইস্রাফিল, অর্থ সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আনিচ মাহমুদ লিমন, দপ্তর সম্পাদক মোঃ মাজেদুল ইসলাম সবুজ, মোঃ খোকন, মোঃ মনির হোসেন, মোঃ শফিক, মোঃ ইদ্রীস, মোঃ সুজন, কাকলী ও নুররেজাসহ আরও প্রোমুখ উপস্থিত ছিলেন।মোঃ আলী আফজাল আকাশ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রাবিয়া সুলতানা, কার্যনির্বাহী সদস্য সহিদুল ইসলাম সাগর, মোঃ মাজেদুল ইসলাম সবুজ।শহীদ মিনারের পাদদেশে সভায় সভাপতি মোঃ জাকির হোসেন মোল্লাহ বলেন, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা করেছিল বাংলাদেশের অস্তিত্বকে বিপন্ন করতে।বাঙালি জাতি সশস্ত্র যুদ্ধে যখন বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে তখনই ইতিহাসের এই ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড হয়।ঘাতকরা বুঝতে পেরেছিল তারা তাদের অপকর্মে সফল হবেন।কিন্তু ইতিহাসের অমোঘ অপরিহার্য পরিণতি অনুযায়ী তাদের সেই ষড়যন্ত্র সফল হয়নি।এই নীলনকশার প্রধান পরিকল্পকদের বিচারিক কার্যক্রমের মাধ্যমে আদালতের রায়ে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে জাতিকে দায়মুক্ত করেছেন।তবে বাঙালিকে মেধাশূন্য করার জন্য এখনো চক্রান্ত হচ্ছে, নতুন প্রজন্মকে বিপথগামী করে তাদের চরিত্র হননের অপচেষ্টা চলছে। তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার ৫৩ বছর পরও পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর দোসররা কতজন বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করেছিল তার সঠিক পরিসংখ্যান এখনো তৈরি হয়নি।তবে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রাথমিকভাবে এক হাজারেও বেশি।এরা আমাদের শ্রেষ্ঠ মানসসম্পদ।আমি সরকারের কাছে আহ্বান জানাই, বুদ্ধিজীবী হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত এখনো অনেকে বিদেশে পলাতক রয়েছে।তাদেরকে ফিরিয়ে এনে আদালতের রায়ে প্রদত্ত সর্বোচ্চ শাস্তি কার্যকর করা হোক।সাধারণ সম্পাদক এম মনির হোসেন বলেন, এর বিরুদ্ধে নতুন প্রজন্মকে সচেতন করে আমাদের আগামী ও ভবিষ্যতকে নিরাপদ করতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓