1. multicare.net@gmail.com : আমাদের পিরোজপুর ২৪ :
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মঠবাড়িয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজের প্রার্থিতা বাতিল গলাচিপা উপজেলা পরিষদে প্রথম নারী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন ওয়ানা মার্জিয়া নিতু আতিকুজ্জামানে মৃত্যুতে বিশিষ্টজনদের শোক-প্রকাশ ফুলপুরে ১০০০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক ১ পবিপ্রবিতে ‘পাওয়ারিং দ্যা ফিউচার’ শীর্ষক সেমিনার পবিপ্রবিতে অফিসার্স এসোসিয়েশনের মতবিনিময় সভা সেভেন স্টার বাস কাউন্টারের কর্মীদের হামলার শিকার পবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা, আহত ৫ ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মুকুল, ভাইস চেয়ারম্যান পিপুল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নার্গিস নির্বাচিত উজিরপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাচ্চুর মোটর সাইকেল প্রতীকের কর্মীসভা ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ভারতীয় নিষিদ্ধ চিনি, মদ ও পিক-আপ সহ গ্রেফতার-৩

বাগেরহাটে ডিএনএ টেস্টে কবর দেয়া লাশ মাহে আলম’র বলে সনাক্ত

  • প্রকাশিত: শনিবার, ১২ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৪০ বার পড়া হয়েছে

বাগেরহাটের মোংলার চিলা গ্রামে হিলটন নাথ হিসেবে কবর দেয়া মরদেহ ব্যবসায়ী মাহে আলম’র হবে সনাক্ত। বাংলাদেশ পুলিশ এর ফরেনসিক ডিএনএ ল্যাবরেটরি সিআইডি মালিবাগ শাখার ১ আগস্ট প্রকাশিত রিপোর্টের ফলাফলে এ তথ্য জানা যায়। গত ১৪ এপ্রিল পরিবারের দাবীর প্রেক্ষিতে দাকোপ থানা কর্তৃক হস্তান্তকৃত হিলটন নাথকে চিলা গ্রামে কবর দেয়া হয়। মোংলার সুমন রানা কবর দেয়া হিলটন নাথ’র লাশকে পিতা মাহে আলম’র লাশ দাবী প্রেক্ষিতে ২৮ এপ্রিল দাকোপ থানায় জিডি করেন। এই পরিস্থিতে দাকোপ থানার মামলায় আদালতের নির্দেশে সিআইডি’র ফরেনসিক ল্যাবরেটরি ডিএনএ টেস্ট’র মাধ্যমে প্রমাণ করে হিলটন নাথ হিসেবে কবর দেয়া লাশ হিলটনের নয়; লাশটি হবে সুমন রানার পিতা ব্যবসায়ী মাহে আলম’র। ফরেনসিক ডিএনএ ল্যাবরেটরি সিআইডি মালিবাগ ঢাকার ডেপুটি চীফ ডিএনএ এনালিস্ট স্বাক্ষরিত রিপোর্টে ( স্মারক নং-২৩-০১৭৭৫/১, তারিখ- ০১-০৮-২০২৩ ) জানা যায়, মোংলার চিলা গ্রামে কবর দেয়া হিলটনের লাশ হবে মোংলার ব্যবসায়ী মাহে আলম’র। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত ”গ” অঞ্চল খুলনার নির্দেশে গত ৯ মে ডিএনএ টেস্ট’র জন্য ঢাকার সিআইডি ল্যাবরেটরি হিলটন নাথ’র মা বিথীকা নাথ এবং মাহে আলম’র ছেলে সুমন রানার রক্ত নমুনা হিসেবে গ্রহণ করে। দুই মাস বিশ দিন পরে ১ আগস্ট প্রকাশিত ডিএনএ টেস্ট’র ফলাফলে সিআইডি’র ডিএনএ পরীক্ষক মোহাম্মদ নাজমুল আলম টুটুল বলেন ”ডিএনএ পরীক্ষায় সুদৃঢ় ভাবে প্রমাণিত হয় যে, অজ্ঞাত মৃতদেহ বিথীকা নাথের জৈবিক সন্তান নয়”। ডিএনএ পরীক্ষক মোহাম্মদ নাজমুল আলম টুটুল আরো বলেন ”ডিএনএ পরীক্ষায় সুদৃঢ় ভাবে প্রমাণিত হয় যে, অজ্ঞাত মৃতদেহ সুমন রানার জৈবিক পিতা”। উল্ল্যেখ্য গত ১৩ এপ্রিল সুন্দরবনের করমজলে অর্ধগলিত পাওয়া একটি মৃতদেহ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ এপ্রিল বিকেলে খুলনার দাকোপ থানা পুলিশ সুন্দরবনে নিখোঁজ জেলে হিলটন নাথ’র পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। অন্যদিকে ১০ এপ্রিল মোংলার ব্যবসায়ী মাহে আলম নিখোঁজ হন। ১৪ এপ্রিল সকালে মাহে আলম’র ছোট ছেলে সুমন রানা মোংলা থানায় পিতার নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে জিডি করেন। জিডি নং- ৬৬০। পরবর্তীতে হিলটন নাথ হিসেবে ১৪ এপ্রিল হস্তান্তরকৃত লাশের ছবি এবং ভিডিও ফুটেজ দেখে একই লাশকে সুমন রানা তার পিতা মাহে আলম’র লাশ দাবী করেন। এব্যাপারে সুমন রানা ২৮ এপ্রিল দাকোপ থানায় একটি জিডি করেন। এছাড়া হিলটন নাথ’র মা বিথীকা নাথ দাকোপ থানায় বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী দিয়ে খুন করে লাশ গুম করার অপরাধে একটি মামলা দায়ের করেন। অন্যদিকে সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজ অন্যান্য আলামত দেখে সুমন রানা মামলা দায়ের করতে চাইলে মোংলা থানা প্রথমে মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরবর্তীতে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নং-২ বাগেরহাটের আদেশের প্রেক্ষিতে মোংলা থানা মামলা গ্রহণ করে। ডিএনএ টেস্ট’র ফল প্রকাশের পর ব্যবসায়ি মাহে আলম’র ছোট ছেলে সুমন রানা’র কাছে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু চিলায় তিন মাস আঠাশ দিন আগে কবর দেয়া লাশ হিলটনের নয়; সেটি আমার বাবা মাহে আলম এর এটা এখন প্রমাণিত। প্রথমত আদালত এবং প্রশাসনের মাধ্যমে লাশ উত্তোলন পূর্বক দ্রুত ইসলামী রীতি অনুযায়ি লাশ দাফন করতে চাই। একই সাথে বলতে চাই আমার বাবাকে পরিকল্পিত ভাবে খুন করে লাশ গুম করার প্রক্রিয়ার সাথে যারা যুক্ত তাদের আইনের আওতায় এনে বিচার দাবী করছি। এ প্রসংগে ভুল লাশ হিসেবে কবর হওয়া সুন্দরবনে নিখোঁজ হিলটন নাথের ভাই সাগর নাথ বলেন ডিএনএ টেস্ট’র রিপোর্ট এখনো হাতে পাই নাই। রিপোর্টের ফলাফলে যদি কবর হওয়া লাশ ব্যবসায়ী মাহে আলম’র হয় তাহলে আমরা আমাদের ভাই হিলটন নাথকে আমাদের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হোক প্রশাসনের কাছে সেই দাবী করছি। ডিএনএ টেস্ট’র ফলাফল এবং মামলার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশ ব্যুরো ইনভেষ্টিগেশন খুলনার তদন্তকারী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন আদালত এবং জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাহে আলম’র ছেলে সুমন রানাকে লাশ বুঝিয়ে দেয়া হবে। হিলটন নাথ’র মা বিথীকা নাথ ভুল তথ্য দেয়ায় মামলার ফাইনাল রিপোর্ট দেয়া হবে। আর মাহে আলমকে পরিকল্পিত ভাবে খুন এবং লাশ গুম করার অভিযোগ থাকলে মাহে আলম’র পরিবারের পক্ষ থেকে পৃথক মামলা করতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓