1. multicare.net@gmail.com : আমাদের পিরোজপুর ২৪ :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১১:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সোমবার দুর্গত এলাকার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ প্রবল ঘূর্ণিঝড় রেমাল বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে শুরু করেছে মুন্সীগঞ্জের কৃতি সন্তান নৌ পুলিশের ডিআইজি ইরান পেলেন উন্নয়নে বাংলা অ্যাওয়ার্ড মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে এক রাতেই ৯টি কবরের কঙ্কাল চুরির অভিযোগ পানি সমস্যা সমাধানে বিত্তহীনদের পাশে সমাজসেবী তাপস পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চল প্লাবিত, ৫৬১টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রোববার রাতে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় রেমাল ঘূর্ণিঝড় রেমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ফুলপুরে ভিজিএফ কর্মসূচি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন প্রাইম ব্যাংক জাতীয় স্কুল ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে কাউখালীর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়

পিরোজপুরে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষকদের থেকে উৎকোচ নেয়ার অভিযোগে উপ-পরিচালকের বদলি

  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২৩
  • ১২৫ বার পড়া হয়েছে

পিরোজপুরের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. হুমায়ুন কবিরকে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বদলির আদেশ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ( ১৭ আগস্ট) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব মো. মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাকে ওই বদলির আদেশ করা হয়। এতে তাকে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার ইসলামিক মিশনে প্রোগ্রাম অফিসার হিসাবে যোগদানের আদেশ করা হয়। জানা গেছে, পিরোজপুর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালকের দায়িত্বে থাকা কালে তার বিরুদ্ধে দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদের কর্তৃক বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ করা হয়। দায়ের হওয়া অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তিনি গত ফেব্রুয়ারী মাসে অনুষ্ঠিত দারুল আরকামের শিক্ষকদের নিয়োগ পুন:বহালের সাক্ষাৎকার গ্রহনে নিয়োগ বোর্ডের জন্য সরকারীভাবে খরচের বরাদ্দ থাকলেও প্রতি শিক্ষকের কাছ থেকে ৬ হাজার টাকা করে উৎকোচ নেন। ওই সব শিক্ষকদের বকেয়া বেতন পাইয়ে দেওয়ার জন্য প্রতি শিক্ষকদের কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকার অগ্রিম চেক নেন। যা পরবর্তীতে গত ২০ জুন তাদের ব্যাংক একাউন্টে আসা বকেয়া বেতন-ভাতার টাকা থেকে তিনি উত্তোলন করেন। এ ছাড়া শিক্ষকদের দুই দিনের প্রশিক্ষনের জন্য বরাদ্দকৃত ১৪৫০ টাকা থাকলেও তাদের ৬৫০ টাকা করে প্রদান করে পুরো ভাতার টাকা গ্রহন হিসাবে স্বাক্ষর নেন। জেলার ১৪ টি মাদরাসা সংস্কার ও বিবিধ খাতে ব্যায়ের জন্য প্রতি মাদরাসা জন্য আসা ৩৪ হাজার ৩৩৯ টাকা বরাদ্দ থাকলেও পুরো টাকার স্বাক্ষর রেখে ২৪ হাজার ৪শত টাকা করে প্রদান করেন। পরে ওই টাকা থেকেও আবার ব্যাক্তিগত খরচ দেখিয়ে প্রতি মাদরাসা থেকে ৪
হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা করে রেখে দেন।
অভিযোগকারী শিক্ষকরা জানান, তার বিরুদ্ধে ওই অভিযোগের বিষয়টি জানাজানি হলে তিনি অন্যান্য শিক্ষকদের ডেকে তাদের চাপ দিয়ে তার পক্ষে সাফাই গেয়ে মহা-পরিচালকের বরাবরে আবেদন পত্রে গত ১৪ আগস্ট স্বাক্ষর গ্রহন করেন। আর ওই সব কাজে সহযোগী হিসাবে সনদ জালিয়াতির অভিযোগে অভিযুক্ত জেলার নেছারাবাদ উপজেলার নুরুল হুদা নামের এক শিক্ষক সহ দুই শিক্ষককে ব্যবহার করছেন। তারা আরো জানান, তার বদলির আদেশ ঠেকাতে শাসক দলের প্রভাবশালীদের কাছে ঘুরছেন। অভিযোগ রয়েছে, এর আগে তিনি ভোলায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালকের দায়িত্ব পালন কালে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত চলমান রয়েছে। এ বিষয়ে ওই কর্মকর্তার সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓