1. multicare.net@gmail.com : আমাদের পিরোজপুর ২৪ :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১০:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সোমবার দুর্গত এলাকার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ প্রবল ঘূর্ণিঝড় রেমাল বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে শুরু করেছে মুন্সীগঞ্জের কৃতি সন্তান নৌ পুলিশের ডিআইজি ইরান পেলেন উন্নয়নে বাংলা অ্যাওয়ার্ড মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে এক রাতেই ৯টি কবরের কঙ্কাল চুরির অভিযোগ পানি সমস্যা সমাধানে বিত্তহীনদের পাশে সমাজসেবী তাপস পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চল প্লাবিত, ৫৬১টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রোববার রাতে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় রেমাল ঘূর্ণিঝড় রেমালের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ফুলপুরে ভিজিএফ কর্মসূচি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন প্রাইম ব্যাংক জাতীয় স্কুল ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে কাউখালীর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়

সাত স্ত্রী নিয়ে একই ছাদের নিচে সংসার করছেন রবিজুল ইসলাম

  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

একটি দুটি তিনটি নয়, সাত সাতটি বিয়ে করেছেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার রবিজুল ইসলাম (৩৮)।বর্তমানে সাত বউকে নিয়ে কোনো ঝামেলা ছাড়াই তিনি খুব সুখেই সংসার করছেন।স্ত্রীরা মিলেমিশে থাকছেন একই বাড়িতে। রবিজুল কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের পাটিকাবাড়ী গ্রামের মিয়াপাড়ার আয়নাল মন্ডলের ছেলে।তাঁর স্ত্রীরা হলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার রুবিনা খাতুন (৩৫), একই উপজেলার গোস্বামী দুর্গাপুর এলাকার মিতা আক্তার (২৫), কিশোরগঞ্জের হেলেনা খাতুন (৩০), রাজশাহীর চাঁপাইনবাবগঞ্জ এলাকার নুরুন নাহার (২৫), চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার স্বপ্না (৩০), একই উপজেলার ডমবলপুর এলাকার বানু আক্তার (৩৫) এবং কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ এলাকার রিতা আক্তার (২০)।রবিজুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, আমি মা-বাবার একমাত্র ছেলেসন্তান।আমার একটা সমস্যা ছিল। সেই সমস্যার বিষয়টি আমি জানি না।আমার মা মানত করেছিলেন, ছেলে বেঁচে থাকলে তাকে সাতটি বিয়ে দেবেন। মায়ের মনের আশা পূরণ করতে আমি সাতটি বিয়ে করেছি। এতে আমি, আমার পরিবার,আত্মীয়স্বজন ও স্থানীয়রা সবাই খুশি।সাত বউই খুব ভালো।স্ত্রীদের পরস্পরের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয় না।সাত স্ত্রী ও পাঁচ সন্তান নিয়ে সুখের সংসার।স্ত্রীরা আদর-যত্ম করে।তারা খুব ভালোবাসে।তিনি আরো বলেন, আমি ১৫ বছর লিবিয়াতে ছিলাম।দুই বছর আগে দেশে এসেছি।বর্তমানে আমার একটি ড্রাইভিং শেখানোর সেন্টার আছে।এ ছাড়া কয়েকটি মাইক্রোবাস রয়েছে।আমি গাড়ি চালাই এবং গাড়ি চালানো শেখাই।এসব উপার্জন দিয়ে আমার সংসার চলে।এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ১৯৯৯ সালে রুবিনাকে বিয়ে করি।তার দুইটা ছেলে রয়েছে।এরপর লিবিয়ায় থাকা অবস্থায় ২০১৪ সালে হেলেনাকে বিয়ে করি।তার এক ছেলে ও এক মেয়ে। ২০২০ সালে নুরুন নাহারকে বিয়ে করি।তার এক মেয়ে আছে।এক বছর আগে স্বপ্নাকে বিয়ে করি।তিন মাস আগে বানুকে, আড়াই মাস আগে রিতাকে এবং দুই মাস আগে মিতাকে বিয়ে করেছি। খোঁজ-খবর নিয়ে পারিবারিকভাবে বিয়ে করেছি। সবাই খুবই ভালো।পরস্পর আপন বোনের মতো সম্পর্ক সবার। কখনো ঝগড়াঝাঁটি করে না। একসঙ্গে মিলেমিশে কাজ করে, সংসার করে।স্থানীয়রা জানায়, রবিজুল ইসলাম সাতটি বিয়ে করেছেন।সাত বউ নিয়ে একই বাড়িতে বসবাস করেন।সাত বউ মিলেমিশে সংসার করেন। এলাকার মানুষ তাদের বাড়িতে বেড়াতে যায়।তারা ভালোই আছেন।তার এক স্ত্রী বলেন, আমরা সাত বোনের মতো। আমরা সারা দিন মিলেমিশে সংসারের কাজ করি।সবার সঙ্গে সবার ভালো সম্পর্ক।বোনের মতো এক বাড়িতে বসবাস করি।কেউ কাউকে হিংসা করে না।কেউ কম কাজ করল বা বেশি কাজ করল, তাতে কিছু যায়-আসে না।আমরা জেনেশুনে বিয়ে করেছি।আমাদের মন খারাপ হয় না।আমাদের স্বামীও খুবই ভালো মানুষ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓